লিখেছেনঃ
2019-06-18BDT15:31 তিন বছর আগে নুরজাহান রোডের দো’ তলা এক বাড়ীর বাতি হঠাৎ করে বন্ধ হয়ে গেল। ঘটনাটা গুছিয়ে বলা প্রয়োজন। কালো করে এক মেয়ে আমার পাশে এসে বসল। বসেই বাতি নিভিয়ে দিল। হকচকিয়ে গেলাম আমি। হচ্ছে কী এসব! বাতি নেভালে কেন? আমি অসুন্দর। এই জন্য। এটা কেমন কথা! আমি এখন তোমাকে একটা পেরিসের কবিতা শোনাব। কবিতাটা আগেও শুনিয়েছি। তখন তোমার সামনে একজন কুৎসিত মেয়ে বসেছিল। এখন যেহেতু মেয়েটিকে বোঝা যাচ্ছে না কাজেই সে এক...জন মায়াবতী। একজন মায়াবতীর সাথে তোমার কেমন সময় কাটে, আমার দেখার খুব ইচ্ছে। স্মকাররা অপ্রস্তুত হওয়া মাত্রই সিগারেটের আস্রয় নেয়। সিগারেট জ্বলেই আবার নিভে গেল। দেয়ালে হেলান দিয়ে কালো করে মেয়েটি গান গাইছে। পুরনো বর্ষার গান। বর্ষা আমার ভাল লাগে না। আমি ছাতা ধরা মানুষ। অন্ধকার গানে সন্মহন কিছু একটা ছিল। আমি মুগ্ধ হয়ে গান শুনছি। আমি মহাপুরুষ না। পরীর মত কাউকে চেয়েছিলাম। অবশ্যই দেখতে ফর্সা হবে। চোখের নিচে মায়া থাকবে। হাসলে খুব সুন্দর লাগবে। না হাসলেও লাগবে। আচ্ছা কালো রঙের কোন পরীর বর্ণনা কী কোথাও আছে? কেন নেই! বর্ষা থেমে গেল। বাইরে তাকিয়ে দেখি ঝলমলে রোদ। ‘বধু... কোন আলো লাগলো চোখে... !’ কী সর্বনাশ! কোন আলোর কথা বলা হচ্ছে! হাত সরিয়ে নিল সে। দুরে গিয়ে ভাবলেশহীন হয়ে বসে আছে। বাতি জ্বালাও। না কেন? আমি অসুন্দর। এই জন্য। এ কেমন কথা! রূপবতীর রূপ অন্ধকারে দেখা যায় না। অন্ধকারে সব একি। পার্থক্য শুধু আলোতে। ৩১৯ এপ্রিল ৩০, ২০১৮ ০১:৪৩ অপরাহ্ন ১ বছর পূর্বে

তিন বছর আগে নুরজাহান রোডের দো’ তলা এক বাড়ীর বাতি হঠাৎ করে বন্ধ হয়ে গেল। ঘটনাটা গুছিয়ে বলা প্রয়োজন। 

কালো করে এক মেয়ে আমার পাশে এসে বসল। বসেই বাতি নিভিয়ে দিল। হকচকিয়ে গেলাম আমি। হচ্ছে কী এসব! 
বাতি নেভালে কেন? 
আমি অসুন্দর। এই জন্য। 
এটা কেমন কথা! 
আমি এখন তোমাকে একটা পেরিসের কবিতা শোনাব। কবিতাটা আগেও শুনিয়েছি। তখন তোমার সামনে একজন কুৎসিত মেয়ে বসেছিল। এখন যেহেতু মেয়েটিকে বোঝা যাচ্ছে না কাজেই সে এক...জন মায়াবতী। একজন মায়াবতীর সাথে তোমার কেমন সময় কাটে, আমার দেখার খুব ইচ্ছে। 

স্মকাররা অপ্রস্তুত হওয়া মাত্রই সিগারেটের আস্রয় নেয়। সিগারেট জ্বলেই আবার নিভে গেল। দেয়ালে হেলান দিয়ে কালো করে মেয়েটি গান গাইছে। পুরনো বর্ষার গান। বর্ষা আমার ভাল লাগে না। আমি ছাতা ধরা মানুষ। অন্ধকার গানে সন্মহন কিছু একটা ছিল। আমি মুগ্ধ হয়ে গান শুনছি। 

আমি মহাপুরুষ না। পরীর মত কাউকে চেয়েছিলাম। অবশ্যই দেখতে ফর্সা হবে। চোখের নিচে মায়া থাকবে। হাসলে খুব সুন্দর লাগবে। না হাসলেও লাগবে। 
আচ্ছা কালো রঙের কোন পরীর বর্ণনা কী কোথাও আছে? কেন নেই! 

বর্ষা থেমে গেল। বাইরে তাকিয়ে দেখি ঝলমলে রোদ। 
‘বধু... 
কোন আলো লাগলো চোখে... !’ 
কী সর্বনাশ! কোন আলোর কথা বলা হচ্ছে! হাত সরিয়ে নিল সে। দুরে গিয়ে ভাবলেশহীন হয়ে বসে আছে। 
বাতি জ্বালাও। 
না 
কেন? 
আমি অসুন্দর। এই জন্য। 
এ কেমন কথা! 
রূপবতীর রূপ অন্ধকারে দেখা যায় না। অন্ধকারে সব একি। পার্থক্য শুধু আলোতে।


বিষয়ঃ অনুগল্প | ট্যাগসমূহঃ গল্প অনুগল্প [ ৩১৯ ] 319 [ ০ ] 0
  • শেয়ার করুনঃ
পাঠিয়ে দিনঃ

ব্লগারঃ মির কায়সার

ব্লগ লিখেছেনঃ ৫ টি
ব্লগে যোগদান করেছেনঃ ২ বছর পূর্বে

০ টি মন্তব্য ও প্রতিমন্তব্য

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করবার জন্য আপনাকে লগইন করতে হবে।
ব্লগের তথ্য
মোট ব্লগারঃ ৬৬ জন
সর্বমোট ব্লগপোস্টঃ ৯৩ টি
সর্বমোট মন্তব্যঃ ১২২ টি

আজ মঙ্গলবার, সময় ০৩:৩১ অপরাহ্ন
আষাঢ় ৪, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
জুন ১৮, ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ
অনলাইনে আছেন


ব্লগ | হিউম্যানস অব ঠাকুরগাঁও-এ প্রকাশিত সকল লেখা এবং মন্তব্যের দায় লেখক-ব্লগার ও মন্তব্যকারীর। কোন ব্লগপোস্ট এবং মন্তব্যের দায় কোন অবস্থায় 'ব্লগ | হিউম্যানস অব ঠাকুরগাঁও' কর্তৃপক্ষ বহন করবে না